বাংলা মজার গল্প-ফুল পরীর দেশে

0
34
বাংলা মজার গল্প-ফুল পরীর দেশে
বাংলা মজার গল্প-ফুল পরীর দেশে

আসসালামু আলাইকুম বন্ধুরা আপনারা সবাই কেমন আছেন। আশা করি, মহান আল্লাহ তা-আলার রহমতে আপনারা সবাই ভালো আছেন। আজ আমি বাংলা মজার গল্প নিয়ে এসেছি। আর যে গল্প টি নিয়ে এসেছি তা হলো ফুল পরীর দেশে । চলুন আর কথা না বাড়িয়ে শুরু করি বাংলা মজার সেই ফুল পরীর দেশে গল্প টি।

বাংলা মজার গল্প ফুল পরীর দেশে

গভীর রাত রুনু অঘোরে ঘুমিয়েছে। ঝুনু তার কাছে এসে চুপি চুপি ডাকল রুনু ওরে বোন ওঠ। কি বলছ ভাই আমাকে ডাকছ কেন? আজ আমাদের ছুটি চল না বাহিরে খানিক টা ঘুরে আসি, ঠিক আছে চল। নিলু আপা তুমি যাবে আমাদের সাথে। চল, সকাল বেলা বেড়াতে বেশ ভালোই লাগবে।

এই কথা বলে, তারা ভোর হতে না হতেই ঘুরতে বেরিয়ে পড়ল। আজকের এই ভোর বেলাটা কি চমৎকার তাই না। আকাশে কোন কুয়াশার জরতা নেই ফাগুনের বাতাস বইতে শুরু করেছে। গাছ থেকে পুরনো পাতা গুলো ঝড়ে গেল আর নতুন পাতা গজাচ্ছে। পথের দু-পাশে ফুটেছে বাহারী ফুল। এই সকল ফুলের নাম আমরা জানিনা, ঠিক ভাই।

ঝুনু বলল, এই গুলা মৌসুমী ফুল, দক্ষিনা বাতাস বইয়ে তাদের ঘুম ভেঙ্গে দেয়। কোন ফুল সাদা আবার কারো রঙ জাফরানী কালো লাল, কারো আবার বেগুনী দেখতে চমৎকার লাগছে। তাই না মিনু আপা। তুমি ঠিক বলেছ। ঐ চেয়ে দেখ শিমুল আর শিউলী রঙ্গে রঙ্গে তারা বনকে উজ্জল করে তুলেছে। ঝুনু বলে, চাপা আর চামিলি আলোকিত করে রেখেছে চারিদিক। আজ গনভুবনে রঙের মেলা।

এই যে হাসু তুমি এদিকে কোথায় যাও। ও তোমরা সকলে আজ দেখছি। আমি যাচ্ছি ফুল পরীর দেশে। ঝুলু বলল, সেই ফুলপরীটা কে? সে কোথায় থাকে। হাসু বলে, তুমি তো দেখছি ভারি বোকা। ফুলপরী টা কে তাকে তুমি চেন না। তোমরা যাবে আমার সাথে। আমরা অবশ্যই যাব। তাহলে চল আমার সাথে। ওদিকে মিনু আপা তুমি কি আমাদের সাথে যাবে।

ঠিক আছে চল, দেখে আসি পরীদের দেশ কেমন। এই কথা বলে, তারা ফুল পরীর দেশে যাওয়ার উদ্দেশ্যে রওনা দিল। তারা যেতে যেতে অনেক পথ পেরিয়ে আসল। তারপর তারা ফুল পরীর দেশে এসে পৌছায়। হাসু বলে এই যে আমরা ফুল পরীর দেশে এসে গেছি। মিনু বলে, কি সুন্দর ফুল গুলো কি অপরুপ পাখি, কালো পালক দেখলে চোখের পলক ফেলা যায় না।

ফুল পরীর সাথে দেখা

ঝুনু বলে, মিনু আপা আমরা কোথায় এসে গেলাম। ছোট ছোট গাছ তার পাতা গুলো কি সুন্দর দেখতে বেশ মজা লাগছে। রুনু বলে, কি রঙ বেরঙের প্রজাপতি। আর সেই প্রজাপতি গুলো ফুলে ফুলে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আরে ফুল পরীর দেশে সবকিছু অপরুপ। রুনু বলে, চল ফুল পরীর সাথে আমি তোমাদের পরিচয় করে দেই।

মিনু বলে, তাহলে চল তোমার ফুলপরীর কাছে। ফুলপরী বলে, তোমরা কে কি করছো আমাদের দেশে এসে। ফুলপরী আমরা তোমার ছোট ছোট ভাই বোনেরা এসেছি। এসেছিস বেশ করেছিস, আমি তো আগেই জানতাম তোমরা আজ এখানে আসবে। হাসু বলে, তুমি কি সত্যি জানতে আজ আমরা আসবো।

তুমি যদি আগে থেকে জেনে থাকো, তাহলে আমাদের জন্য কি কি খাবার তৈরী করে রেখেছ বলতো। ফুলপরী বলে, তোমরা যা যা খেতে চাও আমি তোমাদের কে তাই খাওয়াবো। বল তোমরা কি খাবে। মিনু বলে, তোমাকে দেখে আমার খুব মজা লাগছে ফুলপরী। তুমি না অনেক সুন্দর।

হাসু বলে, ওরে রুনু, ঝুনু তোমরা এমন করে ছোটা ছুটি করো না, পরে যাবি কিন্তু। মিনু বলে, তোমরা তারাতারি গাছ থেকে নেমে আসো, পড়ে যাবি তো। ঝুনু বলে, না না আমি নামবো না। কি চমৎকার চমচম, পানতোয়া, বর্ফি, রাজভোগ, জিলাপি এই সব গুলো গাছে গাছে ধরে রয়েছে। তুমি আমাদের কে বাঁধা দিওনা মিনু আপা। আমি তোমার জন্য দুই পকেট ভর্তি করে আনবো চিন্তা করনা।

ফুলপরী বলে, ওরে ছোট ছোট ভাই বোনেরা তোমরা ঠিক হয়ে বস। আমি তোমাদের ফুলপরী বোন, আমার কথা গুলো মন দিয়ে শোন। হাসু বলে, বল ফুলপরী বোন, আমরা তোমার কথা মন দিয়ে শুনবো। এই তোমারা ছুটা ছুটি করছো, কেউ আবার ফুল ছিরছো, কেউ গাছে উঠে ফল পাড়ছো। কোন অচেনা জায়গায় গিয়ে এমন করা কি উচিত?

ফুল পরীর উপহার

মিনু বলে, তুমি ঠিক কথা বলেছো ফুলপরী বোন। কোন অচেনা জায়গায় গিয়ে এমন করা ঠিক না। এই কথা শুনে রুনু ও ঝুনু গাছ থেকে নেমে আসে। আর বলে, ঠিক আছে ফুলপরী আপা আমরা তোমার কথা মেনে চলব। মা, বাবা ও গুরু জনের বাধ্য হব। আর মন দিয়ে পড়ালেখা করব। আর খুব ভদ্র হয়ে চলব। সবাই যাতে ভালো বলে সেই কাজ করব। আমরা ঠিক বললাম না পরী বোন।

ফুলপরী বলে, তোমরা ঠিক কথা বলেছো। তোমরা যদি এমন কাজ কর তাহলে আমিও খুব খুশি হব। আমার কাছে যখন যা চাইবে আমি তাই দিব। মিনু ফুল পরীকে বলে, আমরা বাড়ি ছেড়ে এসেছি সেই সকাল বেলা এবার আমরা বাড়িতে চলে যাই ফুলপরী বোন। দেরি হলে মা আমাদের কে বকা দিবে। এত শিগ্রয়ই তোমরা চলে যাবে।

থাকোনা আর কিছুক্ষণ। না, ফুলপরী বোন আমরা এখন চলে যাব তুমি আমাদের কে, কি দেবে দাও। ফুলপরী, এই নাও খোকা খুকিরা একটা বাঁশি, হিরা মন পাখি, মানিক-মুক্তার ফুল, পায়েশের হাড়ি, মিঠাইয়ের হাড়ি। তোমরা সবাই একটা করে নাও। হাসু বলে, বাহ কি চমৎকার উপহার ফুলপরী বোন। কি সুন্দর উপহার আমরা কখনো পাইনি।

ফুলপরী বলে, খুকু এই নাও ময়না মতি শাড়ী আর হীরা, পান্না, মানিক, মুক্তার গহণা। এগুলো তুমি এখন পড়। তোমাদের ফুলপরীর ভালোবাসা আর আদরের সোনার হরিণ। হাসু বলে, কি সুন্দর উপহার তোমরা সবাই ফুলপরীর গান শুরু কর।

“সেলাম তোমায় সেলাম তোমার কাছে এসে মোরা কতো কিছু পেলাম”।

এই গান বলে তারা বাড়িতে চলে আসে। রুনুর মা হঠাৎ করে তার ঘরে চলে যায়। গিয়ে দেখে রুনু ঘুমের মধ্যে গান গাইছে। তার মা বলে, রুনু তুমি কি বলছো। তখন রুনু বলে মা তুমি আমাকে ডাকলে কেন? আমি তো ফুলপরীর সাথে ভালো মজা করছিলাম। তুই ফুলপরীদের দেশে গিয়েছিলি। মা তাহলে এটা স্বপ্ন ছিল। এভাবে রুনুরা স্বপ্নে ফুল পরীর দেশ থেকে ঘুরে আসে।

বন্ধুরা, এই ছিল বাংলা মজার গল্প ফুল পরীর দেশে আর আপনাদের যদি ভালো লাগে তাহলে কমেন্ট করে জানিয়ে দেবেন। ধন্যবাদ