গল্পটি আপনার চোখ খুলে দেবে

0
35
গল্পটি আপনার চোখ খুলে দেবে
গল্পটি আপনার চোখ খুলে দেবে

আসসালামু আলাইকুম। আমার প্রিয় পাঠক বন্ধুরা আপনারা সবাই কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহর রহমতে আপনারা সবাই ভালো আছেন। বন্ধুরা আজ আমি আপনাদের কে অন্য রকম একটি গল্প সম্পর্কে জানাবো। যে গল্পটি পড়লে আপনার মন মানসিকতা অনেক পাল্টে যাবে। গল্পটি বাস্তব জীবনের সাথে অনেকাংশে মিল রয়েছে। যা আমরা প্রতি নিয়ত দেখছি। এমনি একটি গল্প যে বাস্তবধর্মি গল্পটি আপনার চোখ খুলে দেবে। চলুন বন্ধুরা জেনে নেই বাস্তবধর্মি গল্পটি যা আপনার চোখ খুলে দেবে ।

এই বাস্তবধর্মি গল্পটি আপনার চোখ খুলে দেবে

এই সুন্দর পৃথিবীতে আমরা মানুষ কত কিছুই না করে থাকি। জীবন কে সুন্দর করে সাজানোর জন্য কত কিছুই না করি। কেউ অফিস আদালতে চাকুরি করি, কেউ বা খেত খামারে দিন মজুরের কাজ করি। সবারেই দিন চলে যায়। কেউ দুই বেলা ভালো মন্দ খেয়ে বেঁচে থাকে আবার কেউ না খেয়ে থাকে। কিন্তু আমরা সমাজের ধনী মানুষেরা কখনো তাদের খোজ রাখি না। তারা খেলো বা না খেলো আমরা তা জানার প্রয়োজন বোধ করি না।

পৃথিবীতে এখনো অনেক মানুষ আছে, তাদের অনেক থাকার পরেও চাহিদা পূরন হয় না। আমরা প্রত্যেকেই জীবন বাঁচানোর জন্য বিভিন্ন কর্মের সাথে জরিয়ে আছি। হয়তো বা সকালে উঠে কাজে যাই আর রাতে বাসায় ফিরে আসি। প্রত্যেকেই যখন আমরা দিন শেষে ঘরে ফিরি।

তখন আমরা এটা ভুলে যাই যে, কিছু মানুষের ত ঘর ই নেই বা কিছু মানুষের বেঁচে থাকার জন্য খাবারের প্রয়োজন সেটাও নেই। আজ আপনি আপনার জীবন যাপন নিয়ে অভিযোগ করছেন। কিন্তু আপনি কি জানেন কিছু মানুষের স্বপ্নই হয়তো বা আপনার মত জীবন যাপন করা। তেমনি একটি গল্প আপনাদের কাছে উপস্থাপন করছি।

বাস্তবধর্মি গল্পটি আপনার চোখ খুলে দেবে। একবার এক কোটি পতি বাড়িতে ফিরছিলো। তার বিলাসবহুল বি এম ডব্লিউ গাড়িতে করে। গাড়িটি নিয়ে যখন সেই কোটিপতি রাস্তায় উঠলো। তখন তিনি দেখতে পেলন। গাড়ির ভিরের মধ্যে থেকে একটি ছেলে দৌড়ে বের হয়ে আসছে। লোকটি দেখতে দেখতেই খেয়াল করল যে, ছেলেটি একটি ইটের টুকরো দিয়ে তার গাড়িকে লক্ষ্য করে ঢিল ছুরে মারছে। ছেলেটির সেই ঢিলটি তার গাড়ির দরজায় বেশ জোরে আঘাত করলো।

লোকটি বুঝতে পারছিলো না যে, কেন ঐ ছেলেটি তার গাড়িতে এত জোরে ঢিল মারলো। লোকটি গাড়ি ঘুরিয়ে আবার, সেই ছেলের জায়গায় যেতে লাগলো এবং ওই ছেলেটিকে খুজতে লাগলো। হটাৎ সে খেয়াল করলো সামনের একটি গাড়ির পিছনে ছেলেটি ভয়ে লুকিয়ে আছে।

লোকটি তখন তার গাড়ি থেকে নেমে ওই ছেলেটির হাত খপ করে ধরে ফেললেন। তারপর লোকটি ছেলেটিকে বললেন এটা কি ধরনের বেয়াদুবি? তুমি আমার গাড়িতে ঢিল কেন ছুরলে? তুমি কি জান এটা সারাতে ( মেরামত করতে ) কত টাকা লাগবে? ছেলেটি ভয়ে ভয়ে বললো,আমি জানি আপনি আমার উপর অনেক রেগে আছেন, আপনার মারতেও ইচ্ছা করছে ।

কিন্তু আমি কি আর করবো, উপায় না পেয়ে এই কাজ করতে হয়েছে। আমি অনেকক্ষন ধরে সাহায্যের জন্য চিৎকার করছিলাম কিন্তু কেউ ই আমায় সাহায্য করতে আসে নাই। তাই বাধ্য হয়ে আপনার গাড়িতে ঢিল মারতে হয়েছে ।

লোকটি বললো কি হয়েছে তোমার? ছেলেটি বললো পাশ্বের সড়ক এ আমার ভাই এক্সিডেন্ট করেছে। তাকে হাসপাতালে নিতে হবে। সে অনেক ভারী এই জন্য আমি তাকে বহন করে নিয়ে যেতে পারছি না। সাহায্যের জন্য চিৎকার করলেও কেউ আমায় সাড়া দেয়নি ।

কিন্তু এই লোকটি তার অফিস থেকে ফিরছিলো। তার বাসায় ফিরতেও অনেক দেরি হচ্ছিলো। তবুও হটাৎ কেনো জানি লোকটির মন নরম হয়ে গেলো ছেলেটির কথা শুনে। লোকটি বাচ্চাটির সাথে গিয়ে তার ভাইকে তার গাড়িতে তুললেন। তার গাড়ির সিট রক্তে একাকার হয়ে গেলো। তারপর তিনি ছেলেটিকে হাসপাতাল এ নিয়ে গেলেন। এমার্জেন্সিতে ভর্তি করার পর  ডাক্তার এসে বললো, ভালো সময়ে এনেছেন। আর একটু দেরি হলে মনেহয় ছেলেটিকে বাচানো যেত না।

এরপর লোকটি তার গাড়ি নিয়ে বাড়ির পথে রওনা দিলেন। কিন্তু এবার তার গাড়ির স্পীড অনেক কম ছিল। তিনি এটা বুজতেও পারছিল না যে তার সাথে কি হচ্ছিল। বাসায় ফিরে গাড়ি পার্ক করে বের হতেই লোকটার চোখে সেই ঢিলের দাগটা পড়লো। দরজায় নিচের দিকে অনেক খানি গর্ত হয়ে গিয়েছে।

ঐ ঢিলের জায়গাটা দেখতে দেখতে লোকটা ভাবলো এই দাগটা সে আর মেরামত  করবে না। যাতে করে তাকে এই দাগ বার বার মনে করিয়ে দেয় যে, জীবনে এতটাও কঠিন হইয়ো না, যাতে করে কাউকে তোমাকে ইট মেরে মনে করিয়ে দিতে হয়। যে কেউ তোমার সাহায্য কামনা করছে।

কেননা প্রতি নিয়ত আপনি কোন না কোন সমস্যার সম্মুখীন হবেন। তাই বলে আপনি সেই বিপদ কে এড়িয়ে চলে যাবেন। সেটা কখনো আপনি করতে পারেন না। আজ আপনি যাকে বিপদে সাহায্য করবেন। আল্লাহ আপনার বিপদ থেকে আপনাকে উদ্ধার করবেন। এটাই প্রকৃতির নিয়ম।

তেমনি আপনার জীবনে আপনি দেখবেন উপরওয়ালা আপনার সাথে সম্পর্ক করতে চায়। কিন্তু অনেক বার ই আপনি তা খেয়ালই করেননি। যখন আপনি কষ্টে থাকবেন সে সময় উপরওয়ালাকেও ইট ছুরে মারবেন। তার কারন হল কষ্ট বা খারাপ সময়।

এখন আপনার মনে হবে যে আপনার দিন গুলো খারাপ যাচ্ছে , যখন মনে হবে আপনার সাথে কিছুই ভাল হচ্ছে না। তখন আর একবার ভাববেন এমন অনেক মানুষ আছে। যারা আপনার থেকেও খারাপ সময় অতিবাহিত করছে। তাই আপনি যেভাবে আছেন , যেমন এ আছেন, যাই আছে আপনার কাছে তাই নিয়ে খুশি থাকবেন।

এসব নিয়ে সন্তুষ্টি থাকলে দেখবেন আসলে আপনি যেভাবে আছেন সেটা অতটা খারাপ অবস্থা না। উপরওয়ালা যা চায় যা করতে বলে তাই করুন তাই বুঝুন, আর নইলে অপেক্ষায় থাকুন একটি ঢিল আপনার দিকেও আসবে।

বন্ধুরা গল্পটি আপনার চোখ খুলে দেবে, আমার এই গল্পটি যদি আপনার কাছে ভালো লাগে তাহলে কমেন্ট বক্সে আপনার মতামত জানিয়ে দেবেন। আপনাদের সবাই কে ধন্যবা