একটি ছোট শিক্ষনীয় গল্প

0
35
একটি ছোট শিক্ষনীয় গল্প
একটি ছোট শিক্ষনীয় গল্প

আমার প্রিয় পাঠক বন্ধুরা। আসসালামু আলাইকুম। আপনারা সবাই কেমন আছেন? আশা করি আল্লাহর রহমতে আপনারা ভালো আছেন। আজ আমি আপনাদের কাছে একটি ছোট শিক্ষনীয় গল্প নিয়ে এসেছি। এই ছোট শিক্ষনীয় গল্প টি পড়ে আপনারা কিছু হলেও শিক্ষা নিতে পারবেন। তাহলে বন্ধুরা এই শিক্ষনীয় ছোট গল্পটি সম্পর্কে জানা যাক।

শিক্ষনীয় ছোট গল্প

অনেক  দিন আগে চীন দেশে এক মেয়ের বাস করতো। মেয়েটির নাম ছিল লিন। সে বিবাহ করে বাস করতে লাগলো তার স্বামী ও শাশুড়ির সাথে। বেশ ভালই যাচ্ছিলো তার দিন। কিন্তু কিছু দিন হলো সে বুঝতে পারলো তার শাশুড়ির সাথে থেকে বাস করা অসম্ভব। ক্রমশ তাদের মধ্যে মতভেদ ও ঝগড়া শুরু হতে লাগলো। শাশুড়ি তাকে প্রায়ই কথা শোনাতো বিভিন্ন কাজ নিয়ে।

সব থেকে খারাপ হলো যে দিকটা সেটা হলো চাইনিজ মত অনুসারে বউ তার শাশুড়িকে মাথা নেড়ে সম্মান জানাতে হবে ও তার সব কথা শুনতে হবে, লিন তার শাশুড়িকে মাথা নেড়েই সম্মান জানাতো। কিন্তু  তার শাশুড়ি তার সাথে খারাপ আচরন করতো।

লিন এটা কোন ভাবেই মেনে নিতে পারছিল না। অনেক দিন পার হয়ে গেলো কিন্তু তাদের বিবাদ না কমে শাশুড়ি তার সাথে খারাপ আচরন করত। এই সমস্ত ঘটনা স্বামীকে হতাশ করে তুললো। লিন কোন ভাবেই তার শাশুড়ির খারাপ আচরন সহ্য করতে পারছিলো না। সে সিদ্ধান্ত নিয়েই নিলো কিছু একটা করতে হবে।

এইবার ঘটনার নতুন মোড় নেয়

লিন এর বাবার বন্ধুর নাম ছিল ফং। তার একটা ফার্মেসির দোকান ছিল। একদিন লিন তার বাবার বন্ধুর কাছে গেলো। লিন তাকে সমস্ত ঘটনা খুলে বললো এবং তার কাছে কিছু বিষ চাইলো। যাতে করে সেই বিষ তার শাশুড়িকে খাইয়ে দিয়ে মেরে ফেলা যায়।আর সব সমস্যার সমাধান পাওয়া যায়। ফং অনকক্ষণ চিন্তা করার পর বললো আমি তোমায় সাহায্য করবো। তোমার সমস্যা সমাধানের জন্য।

কিন্তু আমি তোমাকে যা যা বলবো তা তোমাকে অক্ষরে অক্ষরে পালন করতে হবে। লিন খুশি মনে তার কথায় রাজি হয়ে গেলো। ফং দোকানের ভিতরে গেলেন এবং ফিরে এলেন একটি ঔষধের বোতল নিয়ে। তিনি লিন কে বললেন তোমার শাশুড়িকে মেরে ফেলার জন্য এমন বিষ দেয়া যাবে না যেটাতে সে তাৎক্ষণিক মারা যাবে। এতে লোক জন ও তোমাকে সন্দেহ করবে। এমন বিষ দিতে হবে যা আস্তে আস্তে তোমার শাশুড়িকে মৃত্যুর দিকে নিয়ে যাবে। আমি তোমাকে এমন বিষ দেবো।

এটা প্রতিদিন খাবারের সাথে অল্প অল্প করে মিশিয়ে তোমার শাশুড়িকে খাওয়াবে। এটার কার্যকরিতা শুরু হতে সময় লাগবে একমাসের মত। তাই তুমি তোমার শাশুড়ির সাথে এই কয় দিন ভালো ব্যবহার করতে থাকো। এতে লোকের সন্দেহ কোনভাবেই তোমার উপর পড়বে না।

তার সাথে তর্ক করবে না, তার সব কথা শুনবে, সব কাজ করে দিবে ,তার প্রতিটি ইচ্ছা পুরণ করবে এবং তার সাথে রাণীর মত আচরন করবে। লিন খুব খুশি হলো তার কথা শুনে। তাকে ধন্যবাদ দিয়ে বাসায় ফিরে আসলো তার শাশুড়িকে হত্যা করার কাজ শুরু করার জন্য।

সপ্তাহ পার হয়ে গেলো মাস পার হয়ে গেলো। লিন তার শাশুড়িকে নিয়ম করে ঐ ঔষধ খাওয়াতে লাগলো। সবার সন্ধেহ দূর করার জন্য তার শাশুড়ির সাথে ভালো আচরন করতে লাগলো। সে তার শাশুড়ির সব আদেশ মাথা পেতে নেয়া শুরু করলো।

তার সাথে নিজের মায়ের মত আচরন করতে লাগলো। ছয় মাস পর বাড়ির দৃশ্য পালটে গেল। লিন তার রাগ কে এমন ভাবে আয়ত্ব করা শিখে গেলো যে এখন সে আর রাগ এ হয় না তার শাশুড়ির যে কোন আচরনে।

বউ শাশুড়ীর ভালবাসা

তার সাথে তার শাশুড়ির কোন তর্কই বাধলো না। লিন তার শাশুড়ির সাথে অনেক ঘনিষ্ট হয়ে উঠলো। লিনের প্রতি তার শাশুড়ির আচরন পরিবর্তন হলো এবং উনি লিনকে তার মেয়ের মত ভালবাসতে শুরু করলো। তার সকল বন্ধু বান্ধব ও প্রতিবেশিকে বলতে লাগলেন।

পৃথিবীতে যত বউ মা আছে তার থেকে লিন বেশি সুন্দর আর ভালো বউ মা। লিন এবং তার শাশুড়ি মা মেয়ের মত বাস করতে লাগলো। এত সব পরিবর্তন দেখে লিন এর স্বামী খুব খুশি হয়ে গেলেন।

একদিন লিন আবারো ফং এর কাছে সাহায্যের জন্য আসলো। কিন্তু এবারে সাহায্য ভিন্ন। লিন ফং কে বললো এই নিন আপনার ঔষধ আমি উনার ক্ষতি করতে চাই না। আমি উনাকে আমার মায়ের মত ভালোবাসি আর উনিও আমাকে তার মেয়ের মত ভালবাসেন।

এই কয় মাসে উনার যা ক্ষতি হয়েছে তা থেকে নিরাময় হবার ঔষধ দিন। ফং হেসে বললেন আমি কোন বিষ দেই নি। যা দিয়ে ছিলাম একটি ভিটামিন ফাইল যা উনার জন্য ভালো। এক মাত্র বিষ ছিল তোমার মনে আর তোমার আচরনে যা তুমি ফেলে দিতে সক্ষম হয়েছো এবং তাকে ভালবেসেছো।

পরিশেষে, এটাই বলতে চাই আপনি যার সাথে যেমন ব্যবহার করবেন তার কাছ থেকে তেমন ব্যবহার ই পাবেন। আপনি যাকে যতটা ভালোবাসা দিবেন তার কাছ থেকে ঠিক ততটাই ভালোবাসা পাবেন। আপনি কারো সাথে খারাপ ব্যবহার করলেন এবং তার কাছ থেকে ভাল ব্যবহার আপনি আশা করেন কি? ভালো ব্যবহারই মানুষকে সুন্দর ও সুখের পথের নির্দেশনা দেয়।

বন্ধুরা, এই ছোট শিক্ষনীয় গল্প থেকে আপনারা যদি কিছু শিক্ষা নিতে পারেন তাহলে আমার গল্প লেখাটা স্বার্থক হবে। আর আপনাদের কোন কিছু বলার থাকলে কমেন্ট করে তা জানিয়ে দিন। ধন্যবাদ